স্পেনে সাম্প্রতিক কভিড১৯ মহামারি ইস্যু

বাংলাদেশী আক্রান্ত ২ শতাধীক, ১০জনের অবস্থা আশঙ্কাজনক

ইউরোপের মধ্যে কভিড১৯-এ আক্রান্ত দেশের তালিকায় বর্তমানে স্পেন প্রথমে আছে। আর বৈশ্বিক পরিসংখ্যানে স্পেনের স্থান ৬ নাম্বারে। এর মধ্যে স্পেনে মৃতের সংখ্যা প্রায় ৩০ হাজার স্পর্শ করেছে। আক্রান্ত হয়েছে এখন পর্যন্ত প্রায় সাড়ে ৪ লক্ষ।

       রাষ্ট্রীয় সতর্কতা ওঠিয়ে নেয়ার পর আজকে রেকর্ড সংখ্যক নতুন আক্রান্তের খবর পাওয়া গেছে।
গত ২৪ ঘন্টায় স্পেনে নতুন আক্রান্ত হয়েছে ৩ হাজার ৫৯৪জন। মৃত্যুবরণ করেছে ৪৭জন। আক্রান্তের প্রায় অর্ধেকই রাজধানী মাদ্রিদে (১৫১৩ জন)।
স্পেনের আরাগণ এ আক্রান্তের সংখ্যা সবচে বেশি, দ্বিতীয় অবস্থানে মাদ্রীদ ও তৃতীয় অবস্থানে আছে পাইস ভাস্কো।
মাদ্রিদ ও বার্সেলোনা মিলিয়ে বর্তমানে বাংলাদেশী আক্রান্তের সংখ্যা প্রায় ২ শতের কাছাকাছি। আক্রান্তদের মধ্যে আশঙ্কাজনক অবস্থায় আছেন ১০ জনের ওপরে। মানবাধিকার সংস্থা ভলিয়ান্তে বাংলার দেয়া তথ্য অনুসারে মাদ্রিদে বাংলাদেশী আক্রান্তের সংখ্যা প্রায় ১১৩ জন। আজ নতুন করে বাংলাদেশী আক্রান্ত হয়েছে ১৪জন। আশঙ্কাজনক অবস্থায় আছেন ৬জন।
এছাড়া পর্যটন শহর বার্সেলোনায়ও বাংলাদেশী আক্রান্তের সংখ্যা অর্ধশতকের ওপরে। আশঙ্কাজনক অবস্থায় আছেন ৪ জন।
স্পেন অক্সপোর্ডের তৈরি কভিড১৯এর টিকা কিনবে। ডিসেম্বর মাসের শেষের দিকে অক্সপোর্ডের তৈরি টিকা আসবে বলে জানিয়েছেন স্বাস্থ্যমন্ত্রী সালভাদর ইয়া। তিনি জানিয়েছেন, সব ঠিক থাকলে ২ ডোজ করে টিকা প্রয়োগের হিসেব করে ডিসেম্বরের শেষের দিক থেকে টিকা দেয়া শুরু করবে দেশটির স্বাস্থবিভাগ।
কাতালোনিয়ায় কভিড আক্রান্তের সংখ্যা ১ লক্ষ আতিক্রম করেছে। গত ১৭ থেকে ২৩ আগস্ট পর্যন্ত ৬৬৪৮জন নতুন করে আক্রান্ত হয়েছে কাতালোনিয়ায়। এছাড়া চলতি সপ্তাহে ৪,৩% বেশি আক্রান্ত হয়েছে গত সপ্তাহের তুলনায়। বর্তমানে গড়ে প্রতিদিন ৯০০ জন নতুন করে আক্রান্ত হচ্ছে।
এছাড়া কাতালোনিয়ায় বর্তমানে ১৩৬জন আশঙ্কাজনক অবস্থায় আইসিউতে ভর্তি আছেন। এছাড়া ৬৬২জন চিকিৎসা নিতে হাসপাতালে ভর্তি আছেন।
কাতালোনিয়া এখন পর্যন্ত মোট মৃতের সংখ্যা প্রায় ১৩ হাজার। এর মধ্যে হাসপাতালে মৃত্যুবরণ করেছে ৫৫%, বৃদ্ধদের আবাসস্থলে ৩২%।

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ