স্বপ্ন দেখা মন আর স্বপ্ন ছোঁয়া ক্ষণ

“যখন সময় থমকে দাঁড়ায়, নিরাশার পাখি দুহাত বাড়ায়, খুঁজে নিয়ে মন নির্জন কোন, কি আর করে তখন স্বপ্ন স্বপ্ন স্বপ্ন ,স্বপ্ন দেখে মন।“ নচিকেতার এই জনপ্রিয় গানের কথা দিয়েই আজকের লিখাটা শুরু করছি। হ্যাঁ মন কত স্বপ্নই দেখে এবং দেখায়। জীবনটা চলে স্বপ্নেঘেরা মনকে নিয়েই।কখনো তা চলে ফাগুনের হাওয়ার মতো, আবার কখনো কালবৈশাখী ঝড়ের মতো উড়িয়ে নিয়ে যেতে চায় হতাশার কনাগুলোকে, দিতে চায় এক নতুন ক্ষন, দেখাতে চায় এক নতুন পৃথিবী। স্বপ্নগুলো দানাবাঁধে বুকের ভেতরে। কিছু স্বপ্ন ধরা দেয়, কিছু স্বপ্ন থেকে যায় স্পর্শের বাইরে।

মানুষ স্বপ্ন দেখে বলেই কত কিছু জানার এবং শিখার প্রতি আগ্রহ আসে। ছোটবেলায় আমরা কত কলাবিদ্যা শিখি, যেমন গান নাচ আঁকা। সবাই কি এগুলো নিয়ে সাফল্য অর্জন করতে পারে? না কিন্ত সবাই স্বপ্ন দেখে, একদিন নিশ্চই খ্যাতি অর্জন করবে। মানুষ স্বপ্ন না দেখলে কত শিক্ষনীয় জিনিসই অজানা হয়ে রয়ে যেতো আমাদের। স্বপ্ন যেন এক নদীর স্রোতের মতো। কোন যায়গায় বাধাপ্রাপ্ত হলে যে কোন উপায়ে আঁকাবাঁকা হয়ে বাধাকে পাশ কাটিয়ে বেরিয়ে আসে, আর বয়ে চলে।ঠিক একইভাবে আমাদের ও হতে হবে। বিচলিত না হয়ে বিকল্প পথ ধরে নিজলক্ষ্যে প্রশান্ত চিত্তে এগিয়ে যেতে হবে।

স্বপ্নকে সত্যি করার পথ দেখা যায় না, পথ তৈরী করে নিতে হয়। যেনো আমরা যার যার মতো করে আমাদের ভালোলাগার স্বপ্নকে ছুঁতে পারি। কোন অলীক স্বপ্ন যেনো কারো জীবনকে থমকে না দেয়।

আমার দৃষ্টিতে স্বপ্নের অর্থ হলো- ভালো না থাকা থেকে ভালো আছি বলার সাহস সঞ্চয় করা আর আমরা সবাই চলছি এই সাহস সঞ্চয় করার উপায় খুঁজার চেষ্টায়। পৃথিবীর সবাই সেই চেষ্টা করছে ভিন্ন ভাবে।

আমরা কোন কাজ প্রানপ্রনে চেষ্টা করা সত্ত্বেও অনেক সময় বিফল হই, কিন্ত সেই কাজে যাওয়ার পথ থেমে থাকে না, চেষ্টার ভিন্নতায় উন্নতির শিখরে যেতে হয়। স্বপ্ন দেখি বলেই আবার আমরা উঠে দাঁড়াই, এগিয়ে চলি নিরন্তর বুক ভরা আশা নিয়ে। স্বপ্ন হলো নিরাশা থেকে আশাতে যাওয়ার এক অদৃশ্য সেতু।স্বপ্ন নিজের প্রতি বিশ্বাস বাড়ায়। ইচ্ছাশক্তিকে প্রবল করে তুলে। মানুষ যখনই স্বপ্ন দেখতে শুরু করে তার কাজের প্রতি নিষ্ঠা, একাগ্রতা ভীষনভাবে বেড়ে যায়। অক্লান্ত পরিশ্রমের ভয় থাকে না। যে কাজ আমি একটু হলেও পারি, সে কাজকে নিয়েই যেন বেশী করে ভাবি।

শারীরিক স্বাস্থ্য রক্ষায় যেমন পুষ্টিকর খাবার প্রয়োজন, ঠিক সেরকম মানসিক স্বাস্থ্যের জন্যও স্বপ্নের প্রয়োজন। তাই স্বপ্ন দেখুন, স্বপ্ন দেখতে ভালোবাসুন।

স্বাপ্নিক মানুষ আশাবাদী ও আদর্শবাদী হয়।নিরাশার স্বপ্ন তাকে গ্রাস করতে পারে না। স্বাপ্নিক মানুষ প্রকৃতির মতো সচ্ছল, রৌদ্রের মতো উচ্ছল হয়।সে জীবনকে উপভোগ করে স্বপ্নকে সামনে রেখে,পিছনে রেখে নয়। সে সবসময় পথ চলে হাসি, আনন্দ, ধৈর্য আর লক্ষ্যকে পাশে রেখে।

স্বপ্ন আছে বলেই আগামী কালের জন্য অপেক্ষা করি। স্বপ্ন আছে বলেই বেঁচে থাকার অর্থ খুঁজে পাই।এমন স্বপ্ন দেখবো,যে স্বপ্ন য শুধু দেখার আনন্দে নয়, হাতে পাবার আনন্দে উল্লাসিত হই। স্বপ্ন দেখুন, ভালো থাকুন যার যার মতো করে।

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ